* ​পবিত্র ঈদ -উল ফিতর উপলক্ষে আগামী ২৫ থেকে ২৭ জুন ২০১৭ পর্যন্ত আইভিএসি গ্রাহক সেবা বন্ধ থাকবে। * ​পবিত্র ঈদ -উল ফিতর উপলক্ষে আগামী ২৫ থেকে ২৭ জুন ২০১৭ পর্যন্ত আইভিএসি মতিঝিল বন্ধ থাকবে। * ​বাংলাদেশী পর্যটকদের জন্য ভারতে প্রবেশ ও প্রস্থানের বিধিনিষেধের সহজীকরণ * ​ভিসা আবেদনকারীদের জন্য উপদেষ্টা * ​অ্যাপয়েন্টমেন্ট পদ্ধতির পরিবর্তন: * ​পাসপোর্ট বিতরনের সময় * ​মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য নিয়মাবলী শিথিলকরণ * ​আইভিএসি, ময়মনসিংহের আওতায় এলাকা সমুহ * ​চিকিৎসা ভিসার নিয়মাবলী শিথিলকরণ * ​ই-টোকেন বিহীন ভিসা আবেদনপত্র
ই-টোকেন বিহীন ভিসা আবেদনপত্র

১ ফেব্রুয়ারী ২০১৭-এর থেকে বাংলাদেশের বিদ্যমান ৮টি ভিসা অ্যাপ্লিকেশন সেন্টারে (আইভিএসি) ভারতে যাওয়ার নিশ্চিত টিকিট (বিমান/সড়ক/রেল) সহ বাংলাদেশী ভ্রমণকারীদের সরাসরি ভিসা প্রাপ্তির স্কিমটি বর্ধিত করা হয়েছে। বাংলাদেশী ভ্রমণকারী যাদের নিশ্চিত ভ্রমণ টিকিট রয়েছে তারা কোন অ্যাপয়েন্টমেন্ট ছাড়াই সরাসরি ট্যুরিস্ট ভিসা প্রাপ্তির সুবিধা পাবেন আইভিএসি-এর রাজশাহী, রংপুর, সিলেট, চট্টগ্রাম, খুলনা, যশোর, ময়মনসিংহ এবং বরিশাল শাখায়। ঢাকার আবেদনকারীরা তাদের নিশ্চিত ভ্রমণ টিকিট নিয়ে সরাসরি আইভিএসি মিরপুর শাখায় ট্যুরিস্ট ভিসার আবেদনপত্র জমা দিতে পারবেন। ২. বাংলাদেশী ভ্রমণকারী যারা সরাসরি ট্যুরিস্ট ভিসা পাওয়ার আশা করছেন ,তাদের অবশ্যই ভারত যাওয়ার বিমান, রেল অথবা বাস-এর নিশ্চিত টিকিট ( যথাযথ অপারেটর কর্তৃক ইস্যুকৃত) থাকতে হবে। ভ্রমণের তারিখ অবশ্যই আইভিএসি-তে ভিসা আবেদনপত্র জমাদানের তারিখের এক মাসের মধ্যে হতে হবে। পরবর্তী বিস্তারিত তথ্য www.ivacbd.com -এই ঠিকানায় পাওয়া যাবে। ৩. এই প্রক্রিয়াটি ভারতের ভিসা প্রাপ্তি প্রক্রিয়া চলমান ও সহজীকরণের একটি ধারাবাহিক প্রচেষ্টা। ২০১৬ সালের অক্টোবরে মহিলা ভ্রমণকারী ও তাদের পরিবারের সদস্যদের জন্য প্রথম সারাসরি ট্যুরিস্ট ভিসা স্কিম চালু করা হয় এবং পরে ১ জানুয়ারি ২০১৭ তারিখে এটি সকল বাংলাদেশী ভ্রমণকারীর জন্য বর্ধিত করা হয়। স্কিমটি বাংলাদেশী নাগরিকদের জন্য ভারতীয় ভিসা প্রাপ্তি সহজ করে দিয়েছে। ভারতের নিশ্চিত টিকিট (বিমান, সড়ক, রেল) সহ কোন বাংলাদেশী নাগরিকেরই ট্যুরিস্ট ভিসার জন্য ই-টোকেন/অনলাইন অ্যাপয়েন্টমেন্ট-এর প্রয়োজন নেই। এই প্রক্রিয়াটির মূল উদ্দেশ্য ভারত এবং বাংলাদেশের মানুষের মধ্যে যোগাযোগ দৃঢ় করা।





Design & Development By: